করোনা মোকাবেলায় দেশেই তৈরি হচ্ছে ভেন্টিলেটর

করোনা মোকাবেলায় দেশেই তৈরি হচ্ছে ভেন্টিলেটর দেশেই তৈরি হচ্ছে ভেন্টিলেটর

নভেল করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় ভেন্টিলেটর তৈরি হচ্ছে দেশেই। আয়ারল্যান্ডভিত্তিক মেডিকেল যন্ত্র নির্মাণ প্রতিষ্ঠান মেডট্রনিক্সের সহায়তায় এরই মধ্যে কাজ শুরু করেছে ওয়ালটন ও মাই ওয়ানের মতো কটি প্রতিষ্ঠান এ মাসের শেষেই পরীক্ষামূলকভাবে তৈরি হবে ১০০টি যন্ত্র। 

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক বলছেন, ভবিষ্যতে দেশের চাহিদা মিটিয়ে রপ্তানিও করা যাবে এই ভেন্টিলেটর।মহামারি নভেল করোনাভাইরাসে বিপন্ন সারা বিশ্ব। আর হু হু করেই বাড়ছে এই সংক্রমণটি। তাই আক্রান্তদের বাঁচাতে সবখানেই এখন ভেন্টিলেটরের চরম সংকট। এমনকি বিপাকে পড়েছে উন্নত দেশগুলোও।কোভিড রোগীর অসুস্থতা সর্বোচ্চ পর্যায়ে কৃত্রিম শ্বাসপ্রশ্বাসের জন্য অপরিহার্য এই ভেন্টিলেটর। দেশে এই মুহূর্তে আইসিইউ আছে ১৯২টি। 

তবে আক্রান্ত বাড়তে থাকায় ভেন্টিলেটর সংকটে পড়তে পারে বাংলাদেশও।আর এ অবস্থায় পাশে দাঁড়িয়েছে আয়ারল্যান্ডভিত্তিক প্রতিষ্ঠান মেডট্রনিক। পিবি ৫৬০ ভেন্টিলেটর তৈরির পেটেন্ট, ডিজাইন, হার্ডওয়ার ও সফটওয়্যারের সোর্স কোড উন্মুক্ত করে দিয়েছেন এর চেয়ারম্যান বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ওমর ইশরাক। তাদের সহায়তায়ই দেশে তৈরি হচ্ছে বিশ্বমানের ভেন্টিলেটর।এরই মধ্যে কাজ শুরু করেছে দেশের ইলেকট্রনিক্স পণ্য নির্মাণ প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন ও মাই ওয়ান। তবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে লকডাউন চলায় খুচরা যন্ত্রাংশ আমদানিতে বেগ পেতে হচ্ছে তাদের।

মেডট্রনিকের আয়ারল্যান্ড ও হায়দ্রাবাদের গবেষকরা একযোগে কাজ করছেন বাংলাদেশের গবেষকদের সঙ্গে। পুরোদমে উৎপাদন শুরু হলে এসব ভেন্টিলেটর বিদেশেও রপ্তানি করা যাবে বলে আশা আইসিটি প্রতিমন্ত্রীর।মেডট্রনিকের এই ভেন্টিলেটর যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ এডমিনিস্ট্রেন ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন অনুমোদিত তাই এর মান নিয়েও সংশয় নেই। উৎপাদনের চূড়ান্ত অনুমতি পেলে দেশে করোনা চিকিৎসায় এ উদ্যোগ বড় ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছে আইসিটি মন্ত্রণালয়।

আপনার মতামত লিখুন :