জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান করোনায় আক্রান্ত ছিলেন বাংলা একাডেমিতে লাশ যাবে না

জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান করোনায় আক্রান্ত ছিলেন বাংলা একাডেমিতে লাশ যাবে না জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান করোনায় আক্রান্ত ছিলেন বাংলা একাডেমিতে লাশ যাবে না

ভাষাসৈনিক ও মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন। বৃহস্পতিবার রাতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক কর্মকর্তা সময় সংবাদকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।আনিসুজ্জামানের ছোট ভাই আক্তারুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। করোনা আক্রান্ত হওয়ার কারণে তার মরদেহ বাংলা একাডেমিতে নেয়াসহ অন্যান্য কর্মসূচি বাতিল করা হয়েছে।এর আগে বৃহস্পতিবার (১৪ মে) বিকেল ৪টা ৫৫ মিনিটে রাজধানী ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর।
তার মৃত্যুর পর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। রাতে ফলাফলে জানা যায়, তিনি কোভিড-১৯ পজিটিভ ছিলেন।এর আগে বার্ধক্যজনিত সমস্যার কারণে গত ২৭ এপ্রিল রাজধানীর ইউনিভার্সেল কার্ডিয়াক হাসপাতালে ভর্তি হন অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। সেখানে চিফ কার্ডিওলজিস্ট অধ্যাপক খন্দকার কামরুল ইসলামের অধীনে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন তিনি। পরে ৩ মে চিকিৎসকরা তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (সিসিইউ) স্থানান্তর করেন।খ‌্যাতিমান অধ‌্যাপক আনিসুজ্জামানের জন্ম ১৯৩৭ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার বসিরহাটে। ভারত ভাগের পর তারা এপারে চলে আসেন।ঢাকা বিশ্ববিদ‌্যালয়ের আগে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন আনিসুজ্জামান। এই ভূখণ্ডে ধর্মান্ধতা ও মৌলবাদবিরোধী নানা আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা রয়েছে তার।

আপনার মতামত লিখুন :