ছেলে ঢাকায়, কৌশলে ঘুমন্ত পুত্রবধূকে ধর্ষণ করতেন শ্বশুর

ছেলে ঢাকায়, কৌশলে ঘুমন্ত পুত্রবধূকে ধর্ষণ করতেন শ্বশুর ধর্ষক শ্বশুর ও ধর্ষিতা পুত্রবধূ

লালমনিরহাটের আদিতমারীতে শ্বশুরের বিরুদ্ধে এক পুত্রবধূর ধর্ষণ অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। শ্বশুর ইউনুস আলীর (৪৫) বিরুদ্ধে পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার মহিষখোচা ইউনিয়নের বারঘড়িয়া শেখেরদীঘি নামক গ্রামে। ইউনুস আলীর নিজ বাড়ি থেকে তাকে ধর্ষণরত অবস্থায় হাতেনাতে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ এলাকাবাসী।

এলাকাবাসীসুত্র থেকে জানা যায়, প্রথম স্ত্রী থাকার পরেও এক ছেলে সন্তানসহ দ্বিতীয় স্ত্রীকে বিয়ে করেন ধর্ষক ইউনুস আলী। সে পেশায় কাঠমিস্ত্রি ৫ মাস পূর্বে সেই ছেলের বিয়ে দেন তিনি। স্ত্রীকে বাবার কাছে রেখে ছেলে কাজের সন্ধানে ঢাকায় চলে যান। এদিকে পুত্রবধূ ও স্ত্রীকে নিয়ে বাড়িতে থাকতেন শ্বশুর ইউনুস।

রবিবার (১৮) রাতে ঘুমন্ত পুত্রবধূর ঘরে কৌশলে প্রবেশ করে তাকে ধর্ষণ করেন শ্বশুর। পুত্রবধূর চিৎকারে স্থানীয়রা এসে ধর্ষক শ্বশুরকে হাতেনাতে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

ধর্ষিতা জানান, বিয়ের পর থেকে বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে বিভিন্ন স্থানে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন লম্পট শ্বশুর ইউনুস আলী। এ বিষয়ে প্রতিবাদ করলে ছেলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন ও প্রাণ নাশের করার হুমকিও দেন। গত রবিবার রাতে যখন ঘুমন্ত অবস্থায় তাকে ধর্ষণ করে করে তখন সে চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করে।

এতে করে এলাকাবাসী জড়ো হয়ে যায় সাথে সাথে এবং অপ্রীতিকর অবস্থায় ধর্ষক শ্বশুরকে ধরে ফেলে। এ ঘটনায় সোমবার (১৯ আগস্ট) ওই পুত্রবধূ বাদী হয়ে অভিযুক্ত শ্বশুর ইউনুস আলীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায় এবং নির্যাতিতা পুত্রবধূকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আদিতমারী থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বলেন, ধর্ষিতার অভিযোগটি আমলে নিয়ে আটক ইউনুস আলীকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন :