এন৯৫ মাস্ক, কেনো এতো চাহিদা

এন৯৫ মাস্ক, কেনো এতো চাহিদা

এন৯৫ মাস্ক বা রেসপিরেটর হলো এমন এক বিশেষ মাস্ক যা বায়ুতে ভাসমান ৩ মাইক্রো ব্যাসের বালুকণাকেও রুখে দিতে পারে। এর প্রধান বিশেষত্ব হলো এটি বাতাসের প্রায় ৯৫ শতাংশ বস্তুকণা পরিশোধন করতে পারে। এটি মার্কিন সংস্থা ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর অকুপেশনাল সেফটি অ্যান্ড হেলথ এর বায়ু পরিশোধন এন ৯৫ (N95) এর মানদণ্ড অনুযায়ী তৈরী । তবে এটি সম্পূর্ণ যুক্তরাষ্ট্য কেন্দ্রিক নিয়ম অনুযায়ী তৈরি হলেও যুক্তরাষ্ট্য বাদে অন্য দেশগুলোতে তাদের নিজস্ব নিয়ম অনুযায়ী তৈরি হতে পারে।

তবে সব ক্ষেত্রেই এর মৌলিক নকশা ও কার্যপদ্ধতি প্রায় একই হয়ে থাকে । এর নকশা এমন ভাবে তৈরি করা হয়েছে যাতে এটি যে কারো নাকে ও মুখে খুব ভালো ভাবে এটে যেতে পারে, যার ফলে কোন ধরণের বায়ু বাহিত বস্তু কণা এমনকি ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অনুজীবও তার সংস্পর্শে আসতে পারে না। তারপরও এন ৯৫ মাস্ক পরিধানে যেকোন সংক্রমণ থেকে শতভাগ নিশ্চয়তা দেয় না। এন ৯৫ মাস্ক বা রেসপিরেটরটি কিন্তু কোন ক্ষতিকর গ্যাস বা বাষ্প থেকে সুরক্ষার জন্য নয় বরং এটি বায়ুবাহিত যে কোন বস্তুকণা, বালুকণা ও অনুজীব থেকে সুরক্ষা দিতে পারে।

এন ৯৫ মাস্কে মূলত তন্তুহীন পলিপ্রোপিলিন ফ্যাব্রিক বা সিনথেটিক পলিমার ফাইবারের গলিত প্রবাহের মাধ্যমে অভ্যন্তরীণ পরিশোধন স্তর তৈরি করা হয় আবার কোন কোন মডেল ছিদ্র যুক্ত প্লাস্টিক ঢাকনা দ্বারাও অভ্যন্তরীণ পরিশোধন স্তর তৈরি করা হয়ে থাকে । আর এই স্তরটিই মূলত সকল প্রকার বিপজ্জনক বস্তুকণা থেকে সুরক্ষা দিয়ে থাকে।

এন ৯৫ মাস্ক ব্যবহারের দিক থেকে অন্যান্য বিষয়গুলোর সাথে আকারের দিকটাও বিবেচনায় আনা উচিত। এছাড়াও যাদের আগে থেকে শ্বাস জনিত জটিলতা রয়েছে তাদেরকে অবশ্যই এই ধরনের মাস্ক পরিধানের আগে চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করা উচিত। তা না হলে এই ধরনের মাস্ক পরার ফলে বিভিন্ন হৃৎপিণ্ড, ও ফুসফুস জনিত জটিলতা দেখা যেতে পারে।

যদিও এন৯৫ জাতীয় মাস্কগুলো একবার ব্যবহারের অনুমিত দিয়ে থাকে তবে ব্যবহার বিধী সঠিক হলে দুই তিনবার ও ব্যবহার করা যেতে পারে । তবে অবশ্যই এটি পরে থাকা অবস্থায় যদি কোন কারণে ময়লা হয়ে যায় কিংবা কোন শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যা দেখা দেয় তাহলে তৎক্ষণাৎ এটি পরিবর্তন বা বদলে ফেলতে হবে।


বর্তমান বাজারে এন৯৫মাস্কের সর্বশেষ দাম জেনে নিতে পারেন দাম তুলনা করার ওয়েব সাইট বিডিস্টল.কম থেকে।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন :