চরফ্যাশনে ইউপি সদস্য’র বিরুদ্ধে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঘর নির্মাণের অভিযোগ

চরফ্যাশনে ইউপি সদস্য’র বিরুদ্ধে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঘর নির্মাণের অভিযোগ ছবি- নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঘর নির্মাণ

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানার রসুলপুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের বেড়ি বাধঁ সংলগ্ন উত্তর চর আইচা মৌজায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের ১৪৪/১৪৫ ধারা উপেক্ষা করে ইউপি সদস্য মোঃ আমির হোসেনের বিরুদ্ধে বিরোধীয় ৫৪ শতাংশ জমিতে জোরপূর্বক আধাঁ পাকা ঘর উত্তোলন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বিষয়টি শশীভুষণ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ রফিকুল ইসলামকে অবহিত করলে তিনি গত ২৪ এপ্রিল সরজমিনে গিয়ে পরিদর্শন করেন।

মামলা ও ভূক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা যায় উপজেলার শশীভূষণ থানার রসুলপুর ইউনিয়নের উত্তর চর আইচা মৌজায়, এস.এ খতিয়ান নং-১৩৬, ডিয়ারা খতিয়ান নং-৪৫৩,দাগ নং-৪৩৫০ ও ৪৩৫১ দাগে ৫৪ শতাংশ জমি নিয়ে দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছে।

উক্ত জমি নিয়ে শশীভূষণ থানার রসুলপুর ইউনিয়নের উত্তর চর আইচা মৌজার মোঃ কাশেম গং মোঃ আমির হোসেনের সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। বিরোধীয় জমি নিয়ে মোঃ কাশেম গং গত বছরের ৩ জুন চরফ্যাশন সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে ১৯৩/২০ নং মামলা দায়ের করেন। ঐ মামলায় আদালত শান্তি শৃঙ্খলা বজায় বাখার জন্য উল্লেখিত জমির উপর নিষেধাজ্ঞা জারী করে। এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এমপি ১০৮/২০ মামলা দায়ের করলে বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট উক্ত জমিতে শান্তি ও শৃঙ্খলা বজায় রাখতে ১৪৪/১৪৫ ধারার আদেশ দেন।

গত বছরের ৭ জুন নিষেধাজ্ঞা জারীকৃত জমিতে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জণ্য উভয় পক্ষকে স্ব স্ব অবস্থানে থাকার জন্য আদালতের নিষেধাজ্ঞার নোটিশ প্রদান করেন।

বাদী পক্ষ মোঃ কাশেম জানান, উক্ত আদালতের নিষেধাজ্ঞা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের ১৪৪/১৪৫ ধারা অমান্য করে আইনকে বৃদ্ধাঙ্গলি দেখিয়ে গত ২২ এপ্রিল সকাল থেকে বিবাদী ইউপি সদস্য, ভূমিদস্যু মোঃ আমির হোসেন একদল ভারাটে সন্ত্রাসী নিয়ে দেশীয় অস্ত্র সাজে সজ্জিত হয়ে জোরপূর্বক ঐ জমিতে ঘর উত্তোলেন করছেন।

জোর পূর্বক ঘর উত্তোলনের বিষয়টি শশীভূষণ থানার ওসি মোঃ রফিকুল ইসলামকে জানাই। ওসি মোঃ রফিকুল ইসলাম গত ২৪ এপ্রিল সরজমিনে গিয়ে পরিদর্শন করেন। তিনি কিছু না বলে চলে আসেন। এ রির্পোট লেখা পযর্ন্ত বিরোধীয় জমিতে বিবাদী মোঃ আমির হোসেন ঘর উত্তোলন করছেন।

এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ব্যাপারে বাদী পক্ষ মোঃ কাশেম জানান, আমরা অসহায় হওয়ায় ঔই প্রভাবশালী সরকার দলীয় ইউপি সদস্য, ভূমিদস্যু  মোঃ আমির হোসেন আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে বিরোধীয় জমিতে জোর পূর্বক ঘর উত্তোলন করছেন। বিবাদী মোঃ আমির হোসেন অন্যের জমি দখল করা তার নেশা ও পেশা। সরকার দলীয় লোক বলে থানা পুলিশ কাউকে সে তোয়াক্কা করেনা।

তিনি আরো জানান, বিবাদী এমনকি আমাদেরকে মামলা তুলে নেয়ার হুমকী দিচ্ছে। মামলা তুলে না নিলে প্রানে মেরে ফেলার হুমকী-ধামকি দেন। এ ছাড়াও এলাকা ছাড়া করা সহ আমাদেরকে নারী নির্যাতনসহ বিভিন্ন মামলায় জড়ানোর হুমকী দেয়। তার হুমকীর মুখে আমাদের পরিবারের সকল সদস্যদের নিয়ে প্রতিনিয়ত আতঙ্কে থাকতে হয় ।

ঐ প্রভাবশালী ভূমিদস্যুর কবল থেকে রক্ষা পেতে তাকে গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানিয়ে প্রশাসনের উর্দ্ধোতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন ভূক্তভোগী পরিবারগুলো।

অভিযোগ প্রসংগে ইউপি সদস্য আমির হোসেন জমাদার বলেন- আমরা ওই জমিতে দীর্ঘদিন বসবাস করছি। পুরাতন ঘর ভেঙ্গে নতুন ঘর করতেছি। তারা আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ তাদের জমি তাদের দখলে থাকা সত্তেও একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাকে হয়রানী করছে।

এ বিষয়ে শশীভূষণ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, বাদী পক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে গত ২৪ এপ্রিল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। দেখলাম পুরাতন একটি ঘর ভেঙ্গে নতুন একটি আধাঁ পাকা ঘর উত্তোলন করছেন। মানবিক কারণে কাজ বন্ধ করিনী। তবে এই জমি নিয়ে আদালতের নিষেধাজ্ঞা আছে বলে আমার জানা নাই। তবে দু পক্ষে মধ্যে জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন :