গির্জার বিরুদ্ধে মামলা

গির্জার বিরুদ্ধে মামলা

জার্মানির টুরিংগেন শহরে নাৎসি বাহিনীর চিহ্ন সংবলিত ঘণ্টা ব্যবহার করায় কয়েকটি গির্জার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মোট ২৩টি গির্জায় আইন অমান্য করে নাৎসি আমলের বিশেষ ধরনের ঘণ্টা ব্যবহারের খবর পাওয়া গেছে।


মামলার বাদী দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কার নাৎসি বাহিনীর হামলায় আক্রান্ত এক ব্যক্তির আত্মীয়। তিনি বলেন, টুরিংগেন শহরের পাঁচটি গির্জা নাৎসি আমলের ঘণ্টা ব্যবহার করছে। গির্জা কর্তৃপক্ষকে এ ধরনের ঘণ্টা ব্যবহারের ব্যাপারে সতর্ক করা হলেও তারা বিষয়টিকে গুরুত্ব দেয়নি।


শহরটির পাবলিক প্রসিকিউটর হানেস গ্রম্নসেইসেন বলেন, নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নাৎসি আমলের ঘণ্টা ব্যবহার করার কারণে গির্জাগুলোর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন ক্ষুব্ধ এক ব্যক্তি। এ বিষয়ে আইনি পদক্ষেপের চিন্তা করছে কর্তৃপক্ষ। 


এদিকে অভিযুক্ত গির্জার কর্তাব্যক্তিরা বলছেন, স্থানীয় রাজনৈতিক নেতারা এক চিঠিতে গির্জাগুলোকে ওই ঘণ্টা ব্যবহার করতে বলেছিল। এ বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনার জন্য তারা আগামী এপ্রিল মাসে একটি সভাও আহ্বান করেছে।


গির্জার মুখপাত্র ফ্রিডমান কাল বলেন, ঘণ্টাগুলো কেউ দেখতে পায় না, কেননা, এগুলো যেখানে রাখা আছে, সেখানে সাধারণ মানুষ প্রবেশ করতে পারে না। তিনি বলেন, ঘণ্টাগুলো যে কোনো সময়ই সরিয়ে নেয়া যেতে পারে। তবে সরিয়ে নেয়ার বিষয়টি অবশ্যই দেশের ইতিহাস সংরক্ষণসংক্রান্ত আইনের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হতে হবে।


গির্জায় নাৎসি ঘণ্টা ব্যবহারের বিষয়ে টুরিংগেন রাজ্যের ইহুদি সম্প্রদায়ও গত জানুয়ারি মাসে অভিযোগ করেছিল। রাজ্যের ইহুদি সমিতির সভাপতি রাইনহার্ড স্ক্রাম স্থানীয় দৈনিক 'টুরিংগার আলগেমাইনে'-কে দেয়া এক সাক্ষাৎকার বলেন, গির্জায় নাৎসি ঘণ্টা ব্যবহারের ঘটনা ইহুদিদের জন্য বেদনাদায়ক। 


নাৎসি আমলের ঘণ্টা ব্যবহারের ঘটনায় জার্মানিতে গির্জার বিরুদ্ধে মামলার ঘটনা এটিই প্রথম নয়। টুরিংগেনের মামলার বাদী জানান, পশ্চিম জার্মানির হের্ক্সহাইম আম ব্যার্গ শহরের কয়েকটি গির্জার বিরুদ্ধেও মামলা দায়ের করেছিলেন তিনি। বাদীর মামলার সঙ্গে একমত পোষণ করে শহর কর্তৃপক্ষ জানায়, গির্জায় এ ধরনের ঘণ্টা ব্যবহারের ঘটনা 'সহিংসতা ও অন্যায়ের স্মৃতিকেই' মনে করিয়ে দেয়। তবে দুই সপ্তাহ আগে শহরটির আঞ্চলিক আদালত এক রায়ে গির্জায় 'নাৎসি ঘণ্টা' ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন :